সুমাইয়া নামের অর্থ কি

সুমাইয়া নামের অর্থ সম্মানিয়া, সুখ্যাতি, সুউচ্চ, সমুন্নত এবং পবিত্র। সুমাইয়া একটি মুসলিম মেয়ের নাম যা আরবি থেকে এসেছে এবং সুমাইয়া নামের একাধিক অর্থ রয়েছে। সুমাইয়া নামটির ভাগ্যবান সংখ্যা হল ৩। সুমাইয়া নামের বাংলা ও ইংরেজি বানানসহ আরও অনেক কিছু নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

সুমাইয়া নামের বাংলা অর্থ ও উৎপত্তি! 

নাম  সুমাইয়া। 
নামের অর্থ সম্মানিতা, সুউচ্চ, সুনাম, সুখ্যাতি, পবিত্র, বিশুদ্ধ, প্রথম শহীদা। 
লিঙ্গ মেয়ে/নারী/মহিলা। 
উৎস আরবি। 
ধর্ম ইসলাম। 
ভাগ্যবান সংখ্যা
সংক্ষিপ্ত নাম না। 
নামের দৈর্ঘ্য একটি শব্দ যা বাংলাতে চারটি ও ইংরেজিতে ৭ থেকে ৮টি অক্ষর দ্বারা গঠিত। 

আরও দেখুনঃ স (S) দিয়ে মেয়েদের ৪১১ টি ইসলামিক নামের তালিকা!

সুমাইয়া নামের আরও বিশদ তথ্য!

সুমাইয়া, মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নামগুলির মধ্যে একটি যা আরবি থেকে এসেছে এবং সুমাইয়া নামের একাধিক অর্থ রয়েছে। সুমাইয়া নামটির অন্যান্য অর্থ হচ্ছে সমুন্নত, স্বতন্ত্র চিহ্ন বা নিদর্শনের অধিকারী। 

নামটির বাংলা বানান ও উচ্চারণ হচ্ছে সুমাইয়া এবং এর ইংরেজি বানান ও উচ্চারণ হচ্ছে Sumaiya. অনেকে অতিরিক্ত A যুক্ত Sumaiyaa লিখে থাকেন। এই নামটির অন্য আরেকটি উচ্চারণ ও বানান পাওয়া যায়। আর তা হচ্ছে সুমাইয়াহ বা Sumaiyah. উচ্চারণ ও বানানে সামান্য ভিন্নতা থাকলেও নামের অর্থ একই যা আমরা উল্লেখ করেছি। 

সুমাইয়া নামটি মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে খুবই জনপ্রিয় এবং সকলেই পছন্দ করে কারণ সুমাইয়া নামটির মাধ্যমে একটি শিশু মেয়ের সুন্দর পরিচয় ফুটে উঠে। 

ইসলামের ইতিহাসে সুমাইয়া বিনতে খাব্বাত ছিলেন ছিলেন ইসলামিক ঐতিহ্য অনুসারে হিজরতের পূর্ব সময়ের প্রথম শহীদ মহিলা সাহাবীদের একজন যিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার কারণে ইসলামের চরম দুশমন হিসেবে পরিচত আবু জাহলের হাতে নিহত হন। তিনি ইয়াসির ইবনে আমিরের স্ত্রী এবং আম্মার ইবনে ইয়াসিরের মাতা ছিলেন, যারা প্রথম দিকে ইসলাম গ্রহণকারীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। সুমাইয়া বিনতে খাব্বাত ইসলাম গ্রহণ করার কারণে আবু জাহেল তাকে খুবই নির্মমভাবে হত্যা করে এবং তিনি প্রথম শহীদা নারী হিসেবে মর্যাদা পান। 

আপনি যদি সুমাইয়া নামটির দ্বারা আপনার মেয়ে বাবুর নামকরণ করতে আগ্রহী হন তাহলে নির্দ্বিধায় এটি চয়ন করতে পারেন। কারণ এটি একটি ভালো ইসলামিক নাম যার অর্থগুলো খুবই ভালো এবং ইসলামের ইতিহাসের সাথে যুক্ত। 

সুমাইয়া নামের পরামর্শ…

আপনি যদি সুমাইয়া নামটি দ্বারা আপনার শিশুর মেয়ের নামকরণ করতে আগ্রহী হোন তাহলে সুমাইয়ার সাথে আরও এক বা দুই শব্দের নাম যুক্ত করে আপনার মেয়ের নাম রাখতে পারেন যা আপনাদের বংশগতভাবে মিল হয়। নিচে সুমাইয়া নামের পরামর্শ গুলো দেওয়া হলোঃ 

০১. সুমাইয়া সুলতানা : সুমাইয়া শব্দের অর্থ সম্মানিতা এবং সুলতানা শব্দের অর্থ রাণী, সম্রাজ্ঞী। দুইটি শব্দে মিলে সুমাইয়া সুলতানা নামের পূর্ণ অর্থ হলো সম্মানিত রানী। নামটির ইংরেজি বানান হলো : Sumaiya Sultana.

০২. সুমাইয়া হাসান : হাসান শব্দের অর্থ ভালো ও সুদর্শন। নামটির পূর্ণ অর্থ দাঁড়ায় সুদর্শন সম্মানিতা। পিতার নাম যদি হাসান হয় তাহলে মেয়ের নাম “সুমাইয়া বিন হাসান” রাখা যেতে পারে যার অর্থ হলো হাসানের মেয়ে সুমাইয়া। 

০৩. সুমাইয়া খাতুন : খাতুন শব্দের অর্থ সম্ভ্রান্ত ও ভদ্র মহিলা। দুই শব্দ মিলে সুমাইয়া খাতুন নামের অর্থ হলো সম্মানিত ভদ্র মহিলা বা সম্মানিত মহিলা। 

০৪. সুমাইয়া মুহাম্মদ : মুহাম্মদ শব্দের অর্থ চরম প্রশংসিত। দুই শব্দে মিলে সুমাইয়া মুহাম্মদ নামের অর্থ হলো প্রশংসিত সম্মানিতা। 

০৫. সুমাইয়া আহমেদ : আহমেদ শব্দের অর্থ প্রশংসনীয় ব্যক্তি, উচ্চ প্রশংসিত। দুই শব্দ মিলে সুমাইয়া আহমেদ নামের অর্থ হলো উচ্চ প্রশংসিত সম্মানিতা। 

০৬. শেখ সুমাইয়া : শেখ শব্দের অর্থ “প্রধান, সদর, শীর্ষস্থানীয়। দুই শব্দ মিলে শেখ সুমাইয়া নামের অর্থ হলো “শীর্ষস্থানীয় বা প্রধান সম্মানিতা”। 

০৭. সুমাইয়া সরকার : সরকার হলো বিশেষ্যপদ যা শাসক সম্প্রদায়, গভর্ণমেন্ট; প্রভু; মালিক, ভূস্বামী; শাসনকর্তা বুঝায়। দুই শব্দ মিলে সুমাইয়া সরকার নামের অর্থ হলো “সম্মানিত মালিক বা শাসক“।

নোটঃ সরকার কোন আরবি বা ইসলামিক শব্দ নয়। 

০৮.  সুমাইয়া রহমান : রহমান মহান আল্লাহর সিফতি নামসমূহের একটি। রহমান শব্দটি আরবি এবং এটি একটি পুরুষ নাম যার অর্থ “করুণাময়” বা “দয়ালু“। দুই শব্দ মিলে সুমাইয়া রহমান নামের অর্থ হলো পবিত্র দয়ালু বা করুণাময়ের সম্মানিয়া। কন্যার পিতার নাম যদি রহমান হয় তাহলে মেয়ের নাম সুমাইয়া বিন রহমান রাখতে পারেন যার অর্থ হলো রহমানের মেয়ে সুমাইয়া! এই নাম দ্বারা মেয়ের  বাবার পরিচয় ফুটে ওঠে। সংক্ষেপে সুমাইয়া রহমান নামে কল করা যেতে পারে। 

আরও দেখুনঃ ছেলে বাবুদের জন্য আল্লাহর ৯৯টি সিফতি নাম বাংলা অর্থসহ!

০৯. সুমাইয়া চৌধুরী : চৌধুরী ভারতীয় উপমহাদেশের প্রচলিত একটি বিশেষ পদবি। চৌধুরী শব্দের আক্ষরিক অর্থ হলো “চারের মালিক”। শব্দটি রাজকীয় বা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির ক্ষেত্রে উত্তরাধিকার সূত্রে সম্মানসূচক পদবি হিসাবে ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ পিতা যদি চৌধুরী বংশের উত্তরাধিকারী হয় তাহলে নবজাতক মেয়ের নাম “সুমাইয়া চৌধুরী” নামকরণ করা যেতে পারে। 

১০. সুমাইয়া খান : খান বা খাঁ একটি উপাধি যা বিভিন্ন অর্থে ব্যবহৃত হয়। খান শব্দের দ্বারা মহৎ পদমর্যাদা বুঝানো। খান একটি ঐতিহাসিক উপাধি যা মধ্যযুগীয় মধ্য এশিয়ার কিছু সমাজে শাসক বা সামরিক নেতাকে বোঝাতে ব্যবহৃত হয়। পিতার নামের শেষে যদি উত্তরাধিকারী সূত্রে খান উপাধি ব্যবহৃত হয় তাহলে নবজাতক মেয়ের নাম “সুমাইয়া খান” নামকরণ করা যেতে পারে। 

১১. সুমাইয়া আলী : আলী শব্দের আরবি অর্থ হল “উদার, অবাধ ও উন্নত“।  দুই শব্দ মিলে সুমাইয়া আলী নামের হলো “উন্নত সম্মানীয়া“। আলী শব্দটি একটি বিশেষপদ হিসাবে ব্যবহৃত হয় এবং এটি একটি পুরুষ নাম। পিতার নাম যদি আলী হয় তাহলে নবজাতক মেয়ের নাম “সুমাইয়া বিন আলী” নামকরণ করা যেতে পারে যার অর্থ হলো আলীর কন্যা সুমাইয়া!

১২. সুমাইয়া হক : হক হলো আরবি শব্দ যার অর্থ সত্য। আল-হক্ব হল আল্লাহ তাআলা’র ৯৯টি গুনবাচক নামের মধ্যে অন্যতম একটি নাম। হক একটি পুরুষ নাম যা আরবি থেকে এসেছে। পিতার নাম যদি হক হয় তাহলে নবজাতক মেয়ের নাম “সুমাইয়া হক” নামকরণ করা যেতে পারে। এতে পিতার পরিচয়ও পাওয়া যায়। 

প্রিয় পাঠক পাঠিকা, আশা করি সুমাইয়া নামের অর্থ জেনে আপনার ভালো লেগেছে এবং সুমাইয়া নামটি আপনার মেয়ে বাবুর জন্য চয়ন করবেন। আমরা চেষ্টা করেছি নামগুলোর সঠিক তথ্য আপনাদের নিকট পৌঁছে দিতে। তারপরেও যদি কোনো ভুলক্রটি বিদ্যমান থাকে তাহলে কমেন্টবক্সে তুলে ধরুন আমরা সংশোধন করে নিবো। আল্লাহ হাফেজ! 

For more update please follow our Facebook, Twitter, Instagram , Linkedin , Pinterest , Tumblr And Youtube channel.

Leave a Comment

error: Content is protected !!