খাতুন নামের অর্থ কি? উৎপত্তি ও ইতিহাস জানুন

খাতুন নামের অর্থ কি জানতে এখানে আসুন। আমরা খাতুন নামের বাংলা অর্থ, খাতুন নামের উৎপত্তি, ইতিহাস ও ভাগ্যবান সংখ্যা নিচে বর্ণনা করেছি। তাহলে চলুন খাতুন নামের সঠিক বানান, সংজ্ঞা ও ইতিহাস জানা শুরু করা যাক..

খাতুন শব্দের অর্থ ও সংজ্ঞা! 

নাম  খাতুন – Khatun (উপাধি শব্দ)
অর্থ ও সংজ্ঞা ভদ্র মহিলা, আভিজাত্য, মুসলিম দেশে পদমর্যাদা বা পদমর্যাদার একজন নারী। 
লিঙ্গ নারী। 
ভাগ্যবান সংখ্যা
ধর্ম ইসলাম। 
সংক্ষিপ্ত নাম হ্যাঁ। 
নামের দৈর্ঘ্য তিনটি সংখ্যা একটি শব্দ। 

 

খাতুন শব্দের অর্থ ভদ্রমহিলা’ ​বা ‘আভিজাত্য। এটি হলো মুসলমান নারীদের আভিজাত্যের একটি উপাধি যা খান উপাধি থেকে এসেছে। উইকিপিডিয়া’র সূত্রমতে খাতুন উপাধি সর্বপ্রথম ব্যবহৃত হয় তুর্কি খাগানত এবং পরবর্তীতে মঙ্গোল সাম্রাজ্যে। খাতুন নামের রেফারেন্স ও ইতিহাস নিচে উল্লেখ করা হলো..

খাতুন উপাধি’র উৎপত্তি ও ইতিহাস!

মধ্য এশিয়ায় ইসলামের প্রচার ও বিস্তার লাভের আগে খাতুন ছিল বোখারার রাণীর উপাধি। এবং এনসাইক্লোপিডিয়া অব ইসলাম বই অনুসারে “খাতুন” হলো থটুন চুয়েহের স্ত্রী ও মহিলা আত্মীয় পরবর্তী তুর্কি শাসকদের দ্বারা সোগডিয়ান ভাষার বংশের একটি উপাধি।

ব্রুনো ডি নিকোলা, উইমেন ইন মঙ্গোল ইরানঃ দ্যা খাতুনস, ১২০৬-১৩৩৫ বই অনুসারে “খাতুন” শব্দটির ভাষাগত উত্স অজানা, যদিও সম্ভবত পুরাতন তুর্কি বা সোগডিয়ান বংশোদ্ভূত। ডি নিকোলা বলেছেন যে, মধ্য এশিয়া জুড়ে মঙ্গোলদের বিস্তার লাভের আগে খাতুনের অর্থ ছিল “ভদ্রমহিলা’ বা আভিজাত্য’ এবং মধ্যযুগীয় ফার্সি ও আরবি গ্রন্থগুলিতে এর ব্যাপক ব্যবহার পাওয়া যায়। উৎসঃ Khatun – Wikipedia.

প্রিয় পাঠক পাঠিকা, শিশুদের নামকরণের ক্ষেত্রে সতর্ক হোন। একটি শিশুর নামকরণের জন্য অনেক জ্ঞানের প্রয়োজন হয়। খাতুন একটি আকর্ষণীয় মেয়ের নাম যা সকলেই পছন্দ করে। খাতুন একটি অর্থপূর্ণ নাম যা ব্যক্তিত্বের বৈশিষ্ট্যগুলি বর্ণনা করে। অনেক সূত্রে মতে এটি একটি আরবি ভাষা থেকে উদ্ভূত যা মেয়েদের জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। আপনার শিশু মেয়ের আকর্ষণীয় উপাধি প্রয়োগ করতে খাতুন নামটি পছন্দ করতে পারেন। 

খাতুন নামের বিখ্যাত ব্যক্তিরা!

সাহারা খাতুন – আইনজীবী, রাজনীতিবিদ। এডভোকেট সাহারা খাতুন ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও আইনজীবী যিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। 

রাবেয়া খাতুন – তিনি হলেন একজন বাংলাদেশী সাহিত্যিক। তার রচিত প্রথম উপন্যাসের নাম নিরাশ্রয়া (অপ্রকাশিত)।

ড. হালিমা খাতুন – তিনি হলেন একজন বাংলাদেশী অধ্যাপক ও সাহিত্যিক। তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যাপনা ও শিশু সাহিত্য রচনা করার পাশাপাশি ভাষা আন্দোলনে সরাসরি যুক্ত ছিলেন।

মাহমুদা খাতুন সিদ্দিকা – তিনি ছিলেন বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি ও কথাসাহিত্যিক। 

হাফিজা খাতুন – তিনি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের একজন অধ্যাপক। 

For more update please follow our Facebook, Twitter, Instagram , Linkedin , Pinterest , Tumblr And Youtube channel.

Leave a Comment

error: Content is protected !!