চুল পড়া বন্ধ করার প্রাকৃতিক উপায়

কেশকন্যার চুল এখন যেন মাথায় থাকতেই চাচ্ছেনা! আগের সেই ঘনচুল তো নেই ই, যা ছিল তাও যেন ঝরে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। মেয়েদের চুল যেখানে সবথেকে প্রিয়, সেখানে চুল পড়া বড্ড বেশি মন খারাপের রেশ টানবে, এটাই স্বাভাবিক। করোনাকালিন এই সময়ে আমাদের কম বেশি সবারই অতিরিক্ত চুল ঝড়ে পড়ছে। এই মন খারাপকে স্বস্তিদায়ক উপায়ে যদি ভুলিয়ে দেয়া যায় তবে মন্দ কি!

আজ তাই চুল পড়া বন্ধ করার সহজ ঘরোয়া টিপস নিয়ে হাজির হলাম। তবে দেরী কিসের, চলুন দেখে নেয়া যাক।

অতিরিক্ত চুল ঝরে পড়ার কারনসমুহ!

চুল পড়া বন্ধ রোধ করার পূর্বে কি কি কারনে ঠিক চুল ঝরে পড়ছে তা চিহ্নিত করলে ব্যাপারটা আরও সহজ হয়। অতিরিক্ত চুল পড়ার কিছু প্রাথমিক কারন থাকতে পারে, যার মধ্যে নিম্নোক্ত বিষয়গুলো সর্বত্রই দেখা যায়-

১. অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা –

  • লকডাউনে কমবেশি আমাদের লাইফস্টাইলে চেঞ্জ এসেছে। এই দুশ্চিন্তা যেন নিত্যসঙ্গী। মুলত, বাড়তি দুশ্চিন্তা হতে পারে চুল পড়ার অন্যতম কারন! দীর্ঘ সময় ধরে দুশ্চিন্তা বা মানসিক অবস্থার অবনতি ঘটলে অতিরিক্ত চুল ঝড়ে পড়ার আশংকা থাকে।

২. ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া-

  • হঠাৎ চুল ঝড়ে পড়ার আরেকটি সম্ভাব্য কারন ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। সাধারন,  হরমোন, মানসিক, প্রেশার ও হরমোন ও জন্মনিয়ন্ত্রণ ঔষধগুলোতে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকেই। যার কারনে হঠাৎ নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অতিরিক্ত চুল পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। 

৩. হরমোন ইমব্যালেন্স-

  • সাধারনত, হরমোনাল পরিবর্তন স্বাভাবিকের চেয়ে কম বা বেশি হওয়াতে শারীরিক পরিবর্তনের সাথে চুল পড়ারও সম্পর্ক থাকে। মেয়েদের পিরিয়ডের সময়  হরমোনাল পরিবর্তন ঘটে, যার কারনে স্বাভাবিকভাবে চুল পড়তে পারে।

৪. চুলের জন্য পুষ্টিকর ডায়েট এর ঘাটতি-

  • আপনার রেগুলার ডায়েট চার্ট হতে পারে চুল পড়ার কারনসমুহের একটি। এখনই চেক করুন, আপনার ডায়েট লিস্টে সার্বক্ষণিক আমিষ,ক্যালসিয়াম,চর্বি,খনিজ পদার্থ, আয়রন এসব থাকছে কি?

দীর্ঘদিন এরমধ্যে যেকোন একটির অনুপস্থিতি হতে পারে অতিরিক্ত চুল ঝড়ার একমাত্র কারন।

৫. অতিরিক্ত খুশকি

  • স্কাল্পে মাত্রাতিরিক্ত খুশকি বা ড্যানড্রাফ আপনার গোড়ার চুলকে করে দেয় দুর্বল। ফলে চুল ঝড়া বাড়তে পারে।

এছাড়াও নানাবিধ সমস্যায় আপনার চুল ঝড়ে পড়তে পারে। এখানে মুলত সমসাময়িক কারনসমুহ ই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। 

চুল পড়া বন্ধ করার ৪টি সহজ ঘরোয়া উপায়!

বাড়তি যত্ন ও পরিচর্যা আপনাকে দিতে পারে পূর্বের মত ঝলমলে ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল। সহজ ও কম সময়ে  কাঙ্খিত ফলাফল পেতে কার্যকর কয়েকটি ঘরোয়া টিপস আপনার রুটিনে এখনই এড করে নিন।  তন্মধ্যে নিম্নোক্ত টিপসগুলো সহায়ক হবে বলে আশা করছি।

টিপস ১. পিঁয়াজের রস :

ছবি : পিঁয়াজ।

চুল পড়া রোধে সবথেকে কার্যকরী একটি ঘরোয়া উপায় হলো পিঁয়াজের রস। সাথে পিঁয়াজের রস নতুন চুল গোজাতে সাহায্য করে।

পিঁয়াজের রস স্কাল্পে রক্ত সন্ঞ্চালন বৃদ্ধি করে। পিয়াজের রসে বিদ্যমান ভিটামিন, মিনারেল,সালফার, ক্যালসিয়াম,পটাশিয়াম ইত্যাদি চুলের রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

  • ব্যবহারবিধি :

পিয়াজ টুকরো করে কেটে ব্লেন্ডার মেশিনে ব্লেন্ড করে নিন। তারপর ছাঁকনি দিয়ে রস বের করে নিন৷ সরাসরি পিঁয়াজের রস মাথার ত্বকে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে শ্যাম্পু করে নিন। 

এছাড়া, পিঁয়াজের রসের সাথে পরিমানমতো মধু/ লেবুর রস/ তেল/ এলোভেরা জেল, যেকোন একটি উপকরন মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন।

টিপস ২. মেথি : 

ছবি : মেথি!

মেথির প্যাক চুল ঝরে পড়া রোধে আরেকটি সহজ উপায়। মেথি চুলে বাড়তি পুষ্টি যোগায় এবং গোড়া মজবুত করতে অত্যাধিক সহায়ক। এছাড়াও মেথি খাওয়ার স্বাস্থ্যগত অনেক উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ রয়েছে যা ব্যবহারের মাধ্যমে উপকার পেতে পারেন।

ব্যবহারবিধি :

১/৪ কাপ মেথি ভালোমতো ধুয়ে নিন। এরপর তা সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পরেরদিন ব্লেন্ড করুন অথবা পাটাতে পিশে নিন। এবার মেথির পেস্টটিতে পরিমানমত টকদই যোগ করুন। ২ঘন্টা অপেক্ষা করুন।ব্যাস! রেডি হয়ে গেল আপনার কাঙ্খিত হেয়ার প্যাক। 

এবার চুলের গোড়া ও আগায় ভালোভাবে মেথির পেস্টটি লাগিয়ে নিন। 

৩০-৪০মিনিট পর শ্যাম্পু করে নিন।

টিপস ৩. আমলকি :

ছবি : আমলকি!

আমলকির পুষ্টিগুন আপনার চুল পড়া থামাতে ভীষন সহায়ক। চুলের আগা ফাটা রোধ, খুশিনাশক ও দ্রুত চুল গজানোর জন্য আমলকির উপকারিতা অনেক। এটি স্কাল্পে রক্ত সন্ঞ্চালন বৃদ্ধি করেও  চুলের পুষ্টিগুন বজায় রাখে।

ব্যবহারবিধি :

সাধারনত আমলকি কাঁচা চিবিয়ে খেলেই উপকার মেলে। তবে আপনি সরাসরি মাথায় ব্যবহার ও করতে পারেন।  এইক্ষেত্রে, পরিমানমতো আমলকি ভালমত ধুয়ে বিচি ছাড়িয়ে নিন। তারপর ব্লেন্ড করে অথবা পাটায় পিশে পেস্ট বানিয়ে নিন। এবার ছাকুনি দিয়ে রস বের করে তা সরাসরি স্কাল্পে ম্যাসাজ করুন। 

এছাড়া আমলকির সাথে সামান্য টক দই ব্যবহার করে প্যাক বানিয়েও ব্যবহার করতে পারবেন।

টিপস ৪. এলোভেরা জেল

ছবি : এলোভেরা

এলোভেরা জেল শুধু ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষার্থেই নয়, বরং চুলের সমস্যা সমাধানেও কার্যকর। এলোভেরা চুলের আগাফাটা রোধ, মাথায় খুশকি দুর করার পাশাপাশি চুল পড়া বন্ধতেও সাহায্য করে। 

ব্যবহারবিধি :

এলোভেরা মাঝখান বরারবর কেটে নিয়ে জেল বের করে নিন৷ এবার জেলগুলো ব্লেন্ড করে নিন। এবার ব্লেন্ড করা জেলটি মাথার স্কাল্পে ও চুলের আগায় ভালমত লাগিয়ে নিন। এবার ৩০ মিনিট গরম তোয়ালে দিয়ে মাথার চুল ঢেকে নিন। এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

এছাড়া, এলোভেরা জেলের সাথে অলিভয়েল, লেবুর রস, পিয়াজের রস ইত্যাদি মিক্স করে ও পেস্ট বানিয়ে নিতে পারেন।

চুলকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল রাখতে প্যাক ইউজ করার পাশাপাশি দৈনন্দিন যত্ন দরকার। যেমন, ঘুমানোর আগে নারকেল তেল ম্যাসেজ করা, সপ্তাহে তিনবার শ্যাম্পু করা,  ভেজা চুল না বাধাও না আচড়ানো এমন বাড়তি সতর্কতা ও যত্নসমুহ করলে চুল পড়া বন্ধ হবে। সাথে চুল লম্বা ও ঘন হবে। 

আশা করি, আজকের এই সহজ টিপস গুলো আপনাদের কাজে লাগবে। আমার লেখাটি ভাল লেগে থাকলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ। 

সময় হলে আমার অন্যান্য আর্টিকেলগুলি পড়তে পারেন :

✅ সাফল্য কি? সাফল্যের ইতিকথাঃ বাস্তবতা ও বর্তমান

✅ ডিপ্রেশন টু সুইসাইড : আত্মহত্যাই সমাধান নয়!

✅ মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রিয় খাবারের উপকারিতা

Leave a Comment

error: Content is protected !!