সাফল্য কি? সাফল্যের ইতিকথাঃ বাস্তবতা ও বর্তমান

সাফল্য! এখন যেন এই শব্দটিকে ঘিরেই জীবনের মাপকাঠি বিবেচিত। বস্তুত সাফল্যকে বর্তমানে মোটা অঙ্কের বেতন, একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে শিশুকে পড়ানো কিংবা, বাড়ি,গাড়ি এসব তুচ্ছ বা সাময়িক বিষয়েই আবদ্ধ।

আজকে আবারও আমি বাস্তবতার সমীকরনে সাফল্যের আসল রহস্য ও জীবনে এই সাফল্যের গুরুত্ব নিয়ে প্রয়োজনীয় বিষয় শেয়ার করতে এসেছি। হতাশা, ডিপ্রেশন, দুশ্চিন্তা, যোগ্যতা, আকাঙ্খ্যা সবকিছুর ব্যাতিরেকে জীবনের আসল সাফল্যের জটিল সমীকরনের অঙ্ক কষতে ইন শা আল্লাহ্ কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন।

সাফল্য কি?

সাফল্য কি! এই প্রশ্ন মাথায় ঘুরলে নানা মুনির নানা মত পাবেন।

আপনি একজন ক্লাস ১-৭পড়ুয়া বাচ্চাকে জিজ্ঞাসা করুন, তোমার সাফল্য কোথায়?
-জবাবে, সে বলবে এইযে ক্লাসের ফাস্ট বয় বা গার্ল হওয়া।

আপনি ক্লাস ৮-১০ পড়ুয়া কিশোরী/কিশোরদের জিজ্ঞাসা করবেন একই প্রশ্ন।
-জবাবে আসবে, আমি বোর্ড এক্সামে ভাল রেজাল্ট করে ভাল কলেজে ভর্তি হতে চাই। তারপর উচ্চ শিক্ষিত হয়ে একটা ভাল পোস্ট যেমন, ডাক্তার/ইন্জিনিয়ার/শিক্ষক……. ইত্যাদিতে যোগদান করতে চায়।

ভার্সিটি লেভেলের একজনকে জিজ্ঞেস করলে সেও বলবে তার সাফল্য গ্র্যাজুয়েট হওয়া, ভাল মানের জব করা, বিদেশে পিএইচডি লাভ.. এমনই কিছু।

আচ্ছা স্টুডেন্টদের ক্যাটেগরি বাদ দিলাম।

আপনার বাবাকে বা মা কে জিজ্ঞেস করবেন কি এই প্রশ্নটি?
বলবে, বাবা তুই ভাল থাক, ভাল পড় কিংবা ভাল চাকরি কর এটাই আমার সাফল্য।

এবার, একজন কৃষককে জিজ্ঞেস করুন উনার তাৎক্ষনিক সাফল্য কি!
বলবে, বাজান, এবছরে ধান/সবজি/ফল বেঁচে যদি প্রতি কেজিতে ২টা টাকা বেশি পায়, তাহলে মহাজনের ঋন পরিশোধে সুদের টাকা আর জমবে না। ঘরে নুন ভাত দিয়ে ভাল থাকব। এটাই সাফল্য।

গার্মেন্টস শ্রমিককে বললে বলবে-
একটু ওভারটাইমে ভাল টাকা আসলে ঘরের খরচা সামাল দিতে পারব। এটাই সাফল্য!

এবার আসি মুল প্রসঙ্গে –

হাসপাতালের বেডে শুয়ে থাকা মৃত্যুপথযাত্রী একজন উচ্চবিলাসী ব্যক্তিকে আপনি তার জীবনের সফলতা জিজ্ঞেস করুন তো!

-তিনি কি বলবেন? অঢেল টাকা-সম্পত্তি , গাড়ি বাড়ি, পোশাক, সুন্দর স্ত্রী, সন্তান এসবই কি সাফল্য? এসব তাকে এই মুহুর্তে সুখ দিতে পারবে? জিজ্ঞেস করুন নাহ্ একবার।
তার উত্তর আসবে, আরেকটা সকাল দেখতে চায়, আরেক বেলা ভালমত চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে পৃথিবীর বিশালতা দেখতে চাই। অথবা, সুস্থ দেহে বাড়ি ফিরতে চায়। এটাই তার সাফল্য!

তো উপরের প্রাসঙ্গিকতা এই সাফল্যকে কতটা বাস্তবতার প্রেক্ষাপটে উপস্থাপন করল, ভেবে দেখেছেন কি? তবে এখন সফল হওয়ার কৌশল শেখার আগে আরেকটু বাস্তবতার সম্মুখীন হয়, চলেন!

প্রকৃত সফল ব্যাক্তি কে?

যদি সত্যটাই বলি, তবে এই দুনিয়ায় কেউই মুল সাফল্য এর চুড়ায় উঠতে পারেনা! নিছক এই দুনিয়ায় আমরা গোলযোগ পাকিয়ে খুব সুন্দর করে সাফল্যকে উপস্থাপন করছি। তবে আসলে মুলত সফল কে? সফল ব্যাক্তির উদাহরন আছে কি বাস্তবে?

-আপনি বলবেন: হাসাইলেন নাকি, ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ, বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি বিল গেইটস অথবা বলিউডের বাদশা শাহরুখ খান এর মত সফল মানুষককে কি চোখে পড়ছেনা?!

আচ্ছা চলুন, তর্কে জড়ায়! দেখি আপনার লজিক কতটা আমার লজিকের সাথে খাপ খাওয়ায়!

মার্ক জাকারবার্গ – ফেসবুক চালায় না এমন মানুষ এখন পৃথিবীতে খুব কম। একান্ত নেটওয়ার্কের বাইরে যারা আছে প্রত্যন্ত এলাকার, তারাই এই ফেসবুক চালাতে অক্ষম। এই ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা এর দৈনিক আয় ৪৭ কোটি ১৬ লাখ টাকারও বেশি। তা টাকা দিয়েই সফলতা বিচার করলেন?
ওকে, টাকার অঙ্কটাকেই সাফল্য ধরলাম। গত সোমবার রাতে ফেসবুক কয়েক ঘন্টা বন্ধ থাকায় মার্ক জাকারবার্গ এর ব্যাক্তিগত অর্থের ৬০০ কোটি ডলার কমে গেছে। বিশ্বে ধনীদের তালিকায় এখন তিনি ৫নাম্বারে টপকে পড়েছেন। তা এখন তার সাফল্যের গুনগান গাবেন, গান! ভাল কথা!
কিন্তু এইযে ৫নাম্বারে টপকে পড়ে বিলগেটস ৪নং র্যাংঙ্কিকে উপরে উঠল তিনি কি তার থেকেও বেশি সফল নন? তাহলে মুলত সফলতা কি একান্তই তাৎক্ষনিক? আপনার কি মনে হয়?

আমি আর যুক্তিতে আগালাম নাহ্।

পৃথিবীতে আমরা কেউ ই সুখী নয়। সাফল্যের পিছনে ছুটছি আর ছুটছি। মনে হচ্ছে এইযে সাফল্যের চুড়ায় উঠেই পড়লাম। তারপর উঠে যেন লাগছে, নাহ! এটা কাঙ্খিত সাফল্য নাহ্। আমার আরও একধাপ এগোতে হবে। আরও একটি সিড়িতে এগোতেই হবে। তবে মনে এবার,সাফল্যকে ধরতে পারব। কিন্তু, না যতবারই সাফল্যকে ছিনিয়ে নিতে চান, ততবারই ধোয়াশা হয়েই রয়। মনে হয়, সাফল্য এটা নাহ্।

আসলে কেন এমন?

একবার শুনলাম ঢাকা ভার্সিটিতে চান্স পেলে তার মত ভাগ্যবান, সফল আর কেউই হয়না। তারপর নিউজে দেখলাম, এক ঢাকা ভার্সিটির ছাত্র আত্নহত্যা করেছে। কি অদ্ভুত! সফল ছেলে কেন আত্নহত্যা করল? নিউজের হেডলাইন, মানসিক চাপ ও ডিপ্রেশনে ছেলে আত্নহত্যা করল। তা ভাই সফল মানুষ আত্নহত্যাও করে? কেন ডিপ্রেশনে ভুগে, সে তো সফল আপনাদের ভাষায়!

থামেন! থামেন! আর সাফল্যের সংজ্ঞাকে বির্ব্রত না করি! আপনি ভাবছেন, হুদাই টাইম লস। কি আবোল তাবল, কিসব লজিক, দুরু। সাফল্যের কৌশল দেখতে আসলাম আর আপনি কিনা আমাকে ডিমোটিভেট করছেন। এমনই ভাবছেন, সত্যিই তো?!

আরেকটু ধৈর্য ধরে কি সময় দিতে পারবেন? আমি এবার মুল প্রসঙ্গেই সমীকরন টা মিলিয়ে দেব, ইন শা আল্লাহ্৷ তবে, আপনার সময় এই মুহুর্তে একান্তই দরকার।।

সাফল্য তুমি কোথায়?!

আপনি রোজ একটা লক্ষ্য ফোকাসে রেখে, দিন পার করছেন আগাম ভবিষ্যতের সাফল্যের জন্য! দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করেই যাচ্ছেন নিজের কাঙ্খিত সাফল্যের জন্য। আচ্ছা, আপনি সাফল্য টা পাইলেন ও। এরপর আপনি খুশি, পরিবার খুশি। তারপর? আপনি থেমে যাবেন? আর সাফল্যকে খুঁজবেন না? কেন সাফল্য তো পেয়েই গেলেন, তাইনা? তবে আর খুঁজার প্রশ্ন আসে কই থেকে।

আহারে!!! জীবন তো থেমে থাকার জন্য নয়, বুঝছেন না কেন? সাফল্য পায়ছি তো। তবে আরও কিছু করা দরকার, আরও সামনে আগানো দরকার…..আমআম..

কিরে ভাই আমতা আমতা করছেন কেনো। সহজ ভাষায় বলুন, আবারও আরেক লক্ষ্যের দিকে ধাবিত হচ্ছেন, তার মানে আরও একটা সাফল্য আপনার লাগবে। মুলত এটা সাফল্য ই না! এটা চাহিদা, আকাঙ্খা!. এই চাহিদা আকাঙ্খাকেই আপনি সফলতা বুঝাচ্ছেন। কি ভাই, ঠিক তো?

ব্যাস!!!!!!!! কাহিনীর সমাপ্তি এখানেই।

এই পৃথিবীতে কেউই সফল নয়! কেউই নাহ্। সমীকরন উভয়পক্ষকে সিদ্ধ করেছে।

আবার ও বলব, সফল এই দুনিয়াতে নেই। তবে, আখিরাতে অবশ্যই আছে। অথবা অন্য ধর্মালম্বীদের জন্য পরকাল।

তবে আমরা কেন জীবনে এত এত ছুটে চলছি, সফলতা না থাকলেও?

শুনেন ভাই! সফলতাকে আপনার চাহিদা, আকাঙ্খা, বিলাসিতা, যোগ্যতা, টাকা, সম্পত্তির মধ্যেই আটকে রেখছেন।

সফলতার মিনিং খুবি সহজ খুবই সিম্পল।

যেমন, আপনার শিশু আপনাকে প্রথমবারের মত মা ডেকেছে, এটা আপনার সবথেকে বড় সফলতা সেই মুহুর্তের জন্যই। আপনি চাবেন আরও একটি দুটিবার মা ডাক শুনার জন্য। তবে প্রথমবারের ডাকটাই যেন বিশাল সফলতা।

আবার ধরেন, আপনি চিকেন রোস্ট খেয়েও শুকরিয়া জ্ঞাপন করছেন না, অন্যদিকে একবেলা ডাল ভাত খেয়ে কেউ একজন নিজেকে বেশি সুখী মনে করছে। এখন সফল কে?

মুলত সুখী ও সফলতার মিনিং একইসাথে। আপনি যদি নিজ অবস্থান নিয়ে স্যাটিসফাই থাকেন তবে পৃথিবীর সব থেকে সুখি ও সফল আপনি। এইযে ধরুন, মার্ক জাকারবার্গের যেদিন কোটি ডলার লস গেল,সেদিন সে দুশ্চিন্তায় মরেছে। লান্ঞ্চ বা ডিনারে সে কোনভাবেই হয়ত শুকরিয়া বা স্যাটিসফাই হয়নি। কিন্তু একইসময়ে, আমি বা আমরা মাছ ভাত খেয়ে নিজেকে সুখী ও স্যাটিসফাইড পেয়েছি।

মুলত, সামাজিক ব্যাধি বা রোগে আর আক্রান্ত হয়েন না! মুল সাফল্য আপনার নিজের উপর নির্ভর করে। আপনি যখন কোন একটা ছোট কাজেও আত্মতৃপ্ত ও শুকরিয়া জ্ঞাপন করছেন, তখন বিল গেটস বা মার্ক জাকারবার্গ থেকেও আপনি সফল।
সফলতা খুঁজুন নিজ রাজ্যে, নিজ চেতনায়, নিজ কর্মফলে। তুলনায় যাবেন না। কোন লক্ষ্যে পিছিয়ে পরে হতাশ হলে সফলতা শব্দটি কোন প্রকারেই সত্য নাহ্! সুতরাং, নিছক এই মিথ্যার সাগরে ডুবে নিজেকে আর হতাশায় ডুবাবেন নাহ্।
অতল গহ্বরে আটকে পড়েছেন সফলতা খুঁজতে গিয়ে। আমি আপনাকে হাত দিচ্ছি, উঠে আসুন।

বর্তমানে সফল হন, ভবিষ্যৎ এর জন্য বসে থাকবেন নাহ্। আজকেই নিজের দীনক্ষনের সফলতা লিপিবদ্ধ করুন।আজকে কয়বার নিজের রবকে সময় দিয়েছেন? আজকে কত পৃষ্ঠা কুরআনের অর্থ বুঝেছেন? আপনার মা কয়বার আপনাকে ভাত খেতে ডেকেছে? আপনার বাবা কয়বার আপনাকে কল দিয়েছে? আজকে কয় ঘন্টা মন খুলে আপনি হেসেছেন? আজকে কয় মিনিট বন্ধুদেরকে নিয়ে আড্ডায় মেতেছেন? আজকে নিজের পছন্দের চুড়িটি পড়েছেন কি? নিজের ধুলোবালি জমা গল্পের বইটি উল্টিয়ে সুগন্ধি নিয়েছেন কয়বার? বৃষ্টিতে আজ কতটা ভিজেছেন? ভাই বোনকে কতবার হাসাইছেন? এসব কিছু আগামীকালের সাফল্যের পিছনে হারিয়ে ফেলছেন নাহ্ তো? আগামীটাই যখন অনিশ্চিত, সাফল্য আশা করা টা কতটুক যুক্তিযুক্ত!

এমন অহরহ প্রত্যহ সুখ নিয়ে নিজেকে আপন মনের রাজ্যে সুখি ভাবুন। সন্তুষ্ট থাকুন নিজের কাছে। আজকে কে কাজে লাগান। বারবার ধোয়াশা ঘেরা সাফল্যে নিজেকে হতাশার সাগরে ডুবানেন নাহ্। মনে রাখবেন, “আপনি আশরাফুল মাখলুকাত”- সৃষ্টির সেরা জীব।

“আজকের জন্য বাঁচুন”- এখানেই সাফল্য!!!

প্রিয় পাঠকগন,যুক্তিতর্ক ও বাস্তবিকতার সমীকরনে আমি নিজের মনোভাবকে শাব্দিক অর্থে সাজানোর চেষ্টা করেছি৷ আপনাদের ভালোবাসা ও উৎসাহ যেমন আমার লেখার উদ্দেশ্যকে হাসিল করে, তেমনি আপনাদের মতামত ও অনুপ্রেরণা আমার লেখার যোগ্যতার প্রতিফলন রুপে কাজ করে। তাই, আমার লেখালেখি আপনাদের ভাল লেগে থাকলে অবশ্যই জানাবেন। দোয়ায় সামিল করবেন৷ আসসালামু আলাইকুম।

আরও পড়তে পারেন : কোরআনের আলোকে সাফল্য লাভের ৮টি উপায় | Iqna.ir থেকে। 

আমার বাংলা পোস্ট.কম থেকে আরও…

০১. মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রিয় খাবার ও পুষ্টি গুনাগুন

০২. প্রেমময় জীবনের মধুর অভিমান!

০৩. স্বামীকে ডাকার জন্য রোমান্টিক নাম

০৪. চুল পড়া বন্ধ করার ঘরোয়া উপায়

০৫. নূর দিয়ে ছেলেদের আরবি নাম অর্থসহ

4 thoughts on “সাফল্য কি? সাফল্যের ইতিকথাঃ বাস্তবতা ও বর্তমান”

  1. ধন্যবাদ আপনার উপদেশমূলক লেখালেখির জন্য। আশা করি সত্যিকারের সাফল্য কি সবাই তা বুঝতে পারবে।

    Reply
  2. ধন্যবাদ এত সুন্দর করে আমাদের সকলের কমন ভুলটিকে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য।
    আসল সফলতা আমাদের অনেক কাছেই থাকে তাও আমরা চোখ রাখি অনেক দূরের মরীচিকা তে।

    Reply

Leave a Comment

error: Content is protected !!