শীতের খাবার : শীতের সেরা পাঁচটি খাবার

শীতের খাবারশীতের খাবার। শীতের মৌসুমে খালি পেটে এই পাঁচটি খাবার গ্রহণ করলে স্বাস্থ্যের পক্ষে দারুন উপকারী। এই শীতের মৌসুমে স্বাস্থ্যকর ও ওজন হ্রাস করার জন্য আমাদের প্রাতঃরাশের জন্য পুষ্টিকর এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিৎ যা কেবল স্বাদের জন্য নয় বরং স্বাস্থ্যের পক্ষেও ভালো বলে বিবেচিত হয়।

শীতের মৌসুমে এই জাতীয় অনেক খাবারই আছে। এছাড়াও এমন অনেকগুলি জিনিস রয়েছে যা খালি পেটে খেলেই ঢের উপকার যায়। শীতের সকালে খালি পেটে খেলে আশ্চর্যজনক স্বাস্থ্য উপকার পাওয়া যেতে পারে। শীতকালে আপনি যে খাবার গুলি খেতে পারেন এবং পাশাপাশি যে খাবার গুলি খেয়ে বিভিন্ন রোগগুলি এড়াতে পারেন চলুন জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কি কি।

আরও পড়ুন : শীতের পায়ের যত্ন

শীতের মৌসুমে সবাই গরম খাবার খেতে উপভোগ করে এবং শীতের আবহাওয়া সবসময় গরম কিছু খাওয়ার মতো অনুভূতি তৈরি করে। তাই ভাজা খাবার খাওয়ার পরিমাণও শীতের মরসুমে বেড়ে যায়। ভাজা খাবার পেটে প্রচুর সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। এছাড়াও বেশি ভাজা খাবার খাওয়ার ফলে ওজনও বাড়তে পারে। তবে শীত মৌসুমে সুস্থ থাকতে এবং ওজন কমাতে আপনি আপনার ডায়েটে কিছু স্বাস্থ্যকর খাবার অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন । তাহলে আসুন এখানে আপনাকে শীতের স্বাস্থ্যকর খাবার সম্পর্কে বলি যা শীতে আপনার খালি পেটে খাওয়া উচিৎ।

শীতের মৌসুমে খালি পেটে খাওয়া যায় এমন সেরা পাঁচটি  খাবারের  নাম

০১. ভেজানো বাদামঃ শীতের মৌসুমে সকালে খালি পেটে ভেজানো বাদাম খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী বলে মনে করা হয়। বাদামের ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন ই, প্রোটিন, ফাইবার, ওমেগা-৩ এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড পাওয়া যায় যা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত কার্যকরি বলে বিবেচিত হয়।

০২. ভেজানো আখরোটঃ আখরোট বাদামকে স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী বলে মনে করা হয়। এটি স্মৃতিশক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে। বাদামের মতো আখরোট খাওয়াও বেশি উপকারী হতে পারে। সকালে খালি পেতে ভিজা খালি পেটে ভিজা আখরোট বাদাম খাওয়ার ফলে শরীরের অনেক উপকার হতে পারে।

আরও পড়ুন : কালো জিরা খাওয়ার উপকারিতা

আখরোট কি? আখরোট হচ্ছে এক প্রকারের বাদাম জাতীয় ফল যাতে অত্যন্ত পুষ্টিকর উপাদান যাতে প্রচুর আমিষ এবং অত্যাবশ্যকীয় ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। প্রতি ১০০ গ্রাম আখরোট বাদামে ১৫.২ গ্রাম পরিমাণ আমিষ, ৬৫.২ গ্রাম ফ্যাট এবং ৬.৭ গ্রাম ফাইবার থাকে। তথ্যসূত্রঃ উইকিপিডিয়া

০৩. ওটসঃ খালি পেটে ওটস খেলে শরীরের শক্তি বজায় রাখে। শীতের মৌসুমে ওটস থেকে ভালো প্রাতঃরাশ বা ব্রেকফাস্ট আর কিছু হতে পারে না। ওটস কম ক্যালোরি এবং আরও পুষ্টিকর বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়। ওটস আপনাকে আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখতে সহায়তা করতে পারে।

০৪. পেঁপেঃ পেঁপের খাবার পেট এবং হ্রাসের জন্য যথেষ্ট ভাল হিসাবে বিবেচিত হয়। সকালে খালি পেটে পেঁপে খেলে পেটের সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। তবে হ্যাঁ যাদের পেঁপে খেতে অ্যালার্জি আছে তাদের পেঁপে খাওয়া উচিৎ নয়।

০৫. মধুঃ শীতের মৌসুমে সকালে হালকা গরম পানিতে মধু পান করা শরীরের পক্ষে অনেক উপকার করতে পারে। মধু ঔষুধি গুণাবলী সমৃদ্ধ হিসাবে বিবেচিত হয়। মধুতে প্রচুর খনিজ, ভিটামিন, ফ্ল্যাভোনয়েড এবং এনজাইম রয়েছে। এটি আপনাকে আপনার ওজন কমাতে সহায়তা করতে পারে।   

প্রিয় পাঠক পাঠিকা, শীতে সকালের খাবার হিসেবে পাঁচটি খাবার থেকে যেকোনো একটি খাবার ব্রেকফাস্ট হিসাবে গ্রহণ করতে পারেন এবং তার সাথে আপনার স্বাস্থ্য ও সুস্থতা বজায় রাখতে পারেন। তাহলে আজকের মতো বিদাই। ভালো ও নিরাপদে থাকুন। শিশুদের প্রতি খেয়াল রাখুন। 

আরও পড়তে পারেনঃ দারুচিনির উপকারিতা

For more update please follow our Facebook, Twitter, Instagram , Linkedin , Pinterest , Tumblr And Youtube channel.

Leave a Comment

error: Content is protected !!