জনপ্রিয় মুসলিম শিশুদের নাম ২০২২

২০২২ সালের সবচেয়ে জনপ্রিয় মুসলিম শিশুদের নাম ও নামের অর্থ জানতে এখানে আসুন। আমরা ২০২২ সালের বিশ্বজুড়ে মুসলিম শিশুদের জন্য নির্বাচিত সবচেয়ে জনপ্রিয় নামগুলি একত্রিত করেছি এবং উল্লেখ করেছি!

২০২২ সালে সবচেয়ে জনপ্রিয় মুসলিম শিশুর নাম!

একটি নাম একটি নবজাতক শিশুর আজীবন পরিচয় বহন করে। আর তাই প্রত্যেক পিতামাতাই চেষ্টা করেন তাদের সদ্য নবজাতক শিশুর জন্য একটি আকর্ষণীয়, সুন্দর ও ভালো অর্থবহ ইসলামিক নাম উপহার দিতে।

তাই আজ আমি আপনাদের জানাতে বলতে চলেছি ২০২২ সালে সবচেয়ে জনপ্রিয় মুসলিম শিশুদের নাম যা বাবা-মায়েদের পছন্দের শীর্ষে থাকে। আমরা সেইসব মুসলিম শিশুদের নামগুলি একত্রিত করেছি এবং তালিকা স্বরূপ উল্লেখিত করেছি যাতে আপনার আপনার নবজাতকের জন্য একটি ভালো অর্থবহ নাম নির্বাচন করতে পারেন।

এই তালিকায় উল্লেখিত অধিকাংশ নামগুলো পবিত্র কোরআনে সরাসরি ও পরোক্ষভাবে উল্লেখ আছে। ২০২২ সালের এই কুরআনিক নামগুলোর মধ্যে ছেলে-মেয়েদের ও উভয়লিঙ্গের জন্য ব্যবহৃত নামগুলি স্থান পেয়েছে। আমরা মুসলিম ছেলে ও মেয়েদের ইসলামিক নামগুলির বানান বাংলা, আরবি ও ইংরেজি ভাষাসহ এই আর্টিকেলে তুলে ধরেছি। তাহলে আসুন আমরা ২০২২ সালের মুসলিম নামগুলি অধ্যায়ন করি..

মুসলিম ছেলেদের ইসলামিক নাম ২০২২!

০১. আদনান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরানিক নাম যার অর্থ “বসতি স্থাপনকারী“, “স্বর্গ“। আদনান হল হযরত ইব্রাহিমের পুত্র হযরত ইসমাইলের পুত্রের নাম বলে মনে করা হয়। আদনান আরবের উত্তরের সমস্ত আরবদের পিতা এবং নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পূর্বপুরুষদের একজন। নামের আরবি: عَدْنَان ও ইংরেজি: Adnan.

০২. আম্মার – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরানিক নাম যার অর্থ “দীর্ঘজীবী“, “পুণ্যবান“, “ধার্মিক“, “খোদাভীরু” এবং “ঈশ্বরের ভক্ত“। আম্মার হল নবী মুহাম্মদ (সাঃ) এবং তার সাহাবীদের একজন গুরুত্বপূর্ণ প্রাথমিক সাহাবী এর নাম, যার নাম ছিল আম্মার বিন ইয়াসির। নামের আরবি: عمّار ও ইংরেজি: Ammar.

০৩. আয়মান – ছেলেদের একটি কোরআনিক নাম যার অর্থ “”ধন্য” এবং “সৌভাগ্য“, এবং আক্ষরিক অর্থ “ডান দিকে“। নামের আরবি: أيمن ও ইংরেজি: Ayman

০৪. রুহান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “আধ্যাত্মিক” (অর্থাৎ আত্মার সাথে সম্পর্কিত), “দয়াময়“, “সহানুভূতিশীল“। নামের আরবি: روحان ও ইংরেজি: Ruhan.

০৫. নায়েল – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “সাহসী“, “বিজয়ী“। এছাড়াও নায়েলের অর্থ “ভাগ“, “আল্লাহ কাউকে যা দেন“, “সম্পাদক“, “অধিগ্রহণকারী“, “অনুসন্ধানকারী“। নামের আরবি: نائل ও ইংরেজি: Nayel.

০৬. ঈসা – একজন নবীর নাম যার অর্থ “আল্লাহই নাজাত“। ঈসা ছেলেদের জন্য একটি ভালো নাম যা সরাসরি কুরআনে উল্লেখিত। ঈসা কুরআনে ২৫ বার উল্লেখ করা হয়েছে। নামের আরবি: عِيْسَا ও ইংরেজি: Isa

আরো দেখুন : কুরআনে বর্ণিত নবীদের নাম অর্থসহ তালিকা!

০৭. আফনান – ছেলেদের এবং মেয়েদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “গাছের সম্পূর্ণ ছড়িয়ে থাকা শাখা” কে বুঝায়। নামের আরবি: أَفْنَان ও ইংরেজি: Afnan.

০৮. জায়ন – ছেলেদের এবং মেয়েদের জন্য একটি কুরআনিক নাম যার অর্থ “সৌন্দর্য, সাজসজ্জা, করুণা, শ্রেষ্ঠত্ব“। তবে এটি সরাসরি কুরআনে উল্লেখ করা হয়নি। নামের আরবি: زَيْن ও ইংরেজি: Zayn.

০৯. ইলহান – ছেলেদের এবং মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “স্পষ্টভাবে কিছু বলা, সুন্দর কিছু বলা, সুন্দর কণ্ঠস্বর এবং সুন্দর কণ্ঠে কুরআন পাঠ করা”।   এছাড়াও ইলহান শব্দের সংক্ষিপ্ত অর্থ “স্পষ্ট, বাকপটু, নির্মল এবং স্বতন্ত্র” পাওয়া গেছে। নামের আরবি: إلحان ও ইংরেজি: Ilhan.

১০. ইয়াহিয়া – ছেলেদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনে উল্লেখিত নাম যার অর্থ “দয়ালু, সহানুভূতিশীল এবং কোমল হৃদয়“। নামের আরবি: يحيى ও ইংরেজি: Yahya.

১১. আয়ান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “সময়, যুগ, বয়স“। নামের আরবি: أيّان ও ইংরেজি: Ayan.

১২. আয়দিন – ছেলেদের জন্য সরাসরি একটি কুরআনিক নাম যার অর্থ “হাত, শক্তি, শাক্তিশালী, সক্ষম“। নামের আরবি: أيدٍ ও ইংরেজি: Aydin.

১৩. নাহিয়ান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “জ্ঞানী, প্রজ্ঞা, সিদ্ধান্তশীলতা“। এছাড়াও নাহিয়ান নামের অর্থ “যে ব্যক্তি জ্ঞানের উচ্চতায় পৌঁছেছে” এবং “যে অন্যদের খারাপ কাজ থেকে নিরুৎসাহিত করে বা বাধা দেয়” পাওয়া যায়। নামের আরবি: نَهْيَان ও ইংরেজি: Nahyan.

১৪. আরহাম – ছেলেদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “কোমল হৃদয়, সহানুভূতিশীল, পরম করুণাময়, পরম দয়ালু“। এটি কুরআনে কমপক্ষে পাঁচবার উল্লেখ করা হয়েছে। নামের আরবি: أَرْحَمْ ও ইংরেজি: Arham.

১৫. আরিজ – ছেলেদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “বৃষ্টি বহনকারী মেঘ“। নামের আরবি: عارض ও ইংরেজি: Aariz.

১৬. আরিব – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “সফল“, “বিজয়ী“। নামের আরবি: آرِبْ ও ইংরেজি: Aarib.

১৭. আইদান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “লম্বা পাম গাছ“। নামের আরবি: عيدان ও ইংরেজি: Aidan.

১৮. জিদান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “বৃদ্ধি এবং অগ্রগতি। নামের আরবি: زيدان ও ইংরেজি: Zidan.

১৯. আলিয়ান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “যিনি উপরে উঠেন“, “যে আরোহণ করেন“। রূপক অর্থে “উচ্চ“, “সর্বোচ্চ“, “উন্নত“, “মহান“। আলিয়ান একটি প্রাচীন আরবি নাম যা ইসলামের আগে থেকেই ব্যবহৃত হয়।

২০. উমাইর – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “জীবন” এবং “দীর্ঘজীবী“। উমাইর হলেন একজন সাহসী সাহাবীর নাম যার পুরো নাম ছিল উমাইর বিন ওয়াহব। নামের আরবি: عُمير ও ইংরেজি: umair.

২১. ফাইযান – ছেলেদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “পূন্যবান, ধার্মিক, আল্লাহভীরু, আল্লাহর ভক্ত”। নামের আরবি: فيضان ও ইংরেজি: Faizan.

আরও দেখুন 👉 কোরআন থেকে ছেলেদের নাম🔗 

জনপ্রিয় মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম ২০২২!

০১. জিমাল – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরানিক নাম যার অর্থ পোশাকের যেকোনো বড় আইটেম যা পুরো শরীরকে ঢেকে রাখে, যেমন একটি পোশাক, আলখাল্লা বা আবায়া। এর অর্থ “যাত্রার বিধান“ও। নামের আরবি: زِمال ও ইংরেজি: Zimal

০২. আনায়া – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরানিক নাম যার অর্থ “যত্ন“, “সুরক্ষা“, “অধ্যবসায়“। নামের আরবি: عَناية ও ইংরেজি: Anaya.

০৩. জাইনা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “সৌন্দর্য, অলংকরণ, শ্রেষ্ঠত্ব“। নামের আরবি: زَينة ও ইংরেজি: Zaina.

০৪. আয়েশা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরানিক নাম যার অর্থ “জীবিত“, “সুস্থ“, “সুখীভাবে বেঁচে থাকা“। আয়েশা বিনতে আবু বকর ছিলেন নবী মুহাম্মদ (সাঃ) স্ত্রী। নামের আরবি: عائشة ও ইংরেজি: Aisha.

০৫. ইভা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার “আশ্রয় প্রদান করা“, “যত্ন করা“। নামের আরবি: إِوَاء ও ইংরেজি: Eva.

০৬. নাইরা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক আরবি নাম যার অর্থ “উজ্জ্বল“, “উজ্জ্বল“, “আলোতে পূর্ণ“। নামের আরবি: نَائِرَة ও ইংরেজি: Naira.

০৭. জারা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “উচ্চ মর্যাদা“, “উচ্চ“, “মহৎ এবং দুর্দান্ত“, “সবকিছুর শীর্ষ এবং সেরা“। নামের আরবি: ذَرَى ও ইংরেজি: Zara.

০৮. সাফা – মেয়েদের জন্য একটি কুরআনিক নাম যার অর্থ “বিশুদ্ধতা“, “নিরীহতা“। এছাড়াও সাফা একটি পাহাড়ের নাম যা হজের কার্যক্রমের জন্য খুবই গুরুত্বের। সাফা কুরআনে একবার উল্লেখ করা হয়েছে। আরবি: صفا ইংরেজি: Safaa.

নিঃসন্দেহে সাফা ও মারওয়া আল্লাহর নিদর্শনসমূহের অন্তর্ভুক্ত। (কুরআনঃ ২:১৫৮)

০৯. আমাল – মেয়েদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “আশা“, “আকাঙ্খা“, “আশাবাদী“। এটি কুরআনে দু’বার উল্লেখ করা হয়েছে। নামটির আরবি: أمل ও ইংরেজি: Amal.

১০. দানিয়া – মেয়েদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “কাছের”, “ঘনিষ্ঠ“। নামটির আরবি উচ্চারণ: دَانِيَة নামটির ইংরেজি উচ্চারণ: Dania

১১. হানিয়া – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “সুখ, হাসি, আনন্দ“। নামের আরবি: هانية ও ইংরেজি: Haniya

১২.ইউসরা – মেয়েদের জন্য একটি সরাসরি কুরআনিক নাম যার অর্থ “স্বাচ্ছন্দ্য“, “সান্ত্বনা“, “আশীর্বাদ“। ইউসরা কুরআনে দুইবার ব্যবহৃত হয়েছে, আয়াত ৮৭:৮ এবং ৯২:৭ এ। নামের আরবি: يسرى ও ইংরেজি: Yusra.

১৩. ইনায়া – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “যত্ন, সুরক্ষাসাহায্য“। নামের আরবি: عِناية ও ইংরেজি: Inaya.

১৪. লিয়ানা – মেয়েদের জন্য পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “কোমলতা, সূক্ষ্মতা, আবেগপ্রবণতা“। নামের আরবি: لِيانَةٌ ও ইংরেজি: Liyana.

১৫. হান্নাহ – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “কোমল হৃদয়, সহানুভূতিশীল, প্রেমময়দয়ালু“। নামের আরবি: حَنَّة ও ইংরেজি: Hannah.

১৬. মাইরা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার দু’টি ভিন্ন মূল থেকে দুইটি অর্থ পাওয়া যায়। প্রথম মূলের অর্থ ” আলো, দ্রুত, দ্রুত-চলন্ত“, দ্বিতীয় মূলের অর্থ “খাদ্য আনয়নকারী“।  নামের আরবি: مائرة ও ইংরেজি: Maira.

১৭. ইনারা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “আলো, দীপ্তি, আলোকসজ্জা, আলোকিতকরণ“। নামের আরবি: إنارة ও ইংরেজি: Inara.

১৮. সারাহ – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক যার অর্থ “সুখের আনয়নকারী“, “আনন্দের কারণ“। সারাহ হল নবী হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর স্ত্রী এবং হযরত ইসহাক (আঃ) এর মায়ের নামও। নামের আরবি: سارة ও ইংরেজি: Sarah.

১৯. আয়ানা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “বুদ্ধিমান, শিক্ষিত এবং বুদ্ধিজীবী“। নামের আরবি: أيّانَة ও ইংরেজি: Ayana.

২০. নুহা – মেয়েদের জন্য সরাসরি একটি কুরআনিক নাম যার অর্থ “চিন্তা করার ক্ষমতা“, “বুদ্ধিমত্তা“, “মন“, “যুক্তি“, “বুদ্ধি“। কুরআনে নুহা দুইবার ব্যবহৃত হয়েছে। (কুরআন ২০:৫৪, ২০:১২৮) নামের আরবি: نُهى ও ইংরেজি: Nuha.

২১. এলেইনা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “নরম, নমনীয়, সূক্ষ্ম“। নামের আরবি: اليِناءْ ও ইংরেজি: Aleena.

২২. ইলিয়ানা – মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “কোমলতা“, “নম্রতা“, “দয়া“, “ভদ্রতা“। নামের আরবি: إليانة ও ইংরেজি: ilyana.

আরও দেখুন 👉 কোরআন থেকে মেয়েদের নাম🔗

শিশুদের উভয় লিঙ্গ নাম (unisex name for Baby) 

০১. আমারা – ছেলেদের ও মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কোরআনিক নাম যার অর্থ “গোত্র“, “এক সাথে যাত্রা করা জাহাজের একটি বড় দল“। নামের আরবি: عمارة ও ইংরেজি: Amara.

০২. ইয’আন – ছেলে ও মেয়ে উভয়দের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “বশ্যতা“, “আনুগত্য“, “গ্রহণ“। নামের আরবি: إذعان ও ইংরেজি: Izaan.

০৩. আলাইয়া – ছেলে ও মেয়েদের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “উচ্চ মর্যাদা, উচ্চ, মহানতা, মহৎ এবং দুর্দান্ত“। আরবরা বেশিরভাগই ছেলেদের নামকরণের জন্য এটি ব্যবহার করে, অন্য সংস্কৃতিতে এটি মেয়েদের নামকরণের জন্যও ব্যবহৃত হয়। নামের আরবি: عَلَايَا ও ইংরেজি: Alaya.

০৪. জায়ান – ছেলেদের ও মেয়েদের জন্য একটি কুরআনিক নাম যার অর্থ “সুন্দরকারী”, যিনি জিনিসগুলিকে সুন্দর করে তোলে বা জিনিসগুলিকে উন্নত করে। নামের আরবি:زَيَّان ও ইংরেজি: Zayyan. 

০৫. রায়ান – ছেলে ও মেয়ে উভয়ের জন্য একটি পরোক্ষ কুরআনিক নাম যার অর্থ “যিনি পানি পান করেন, যিনি তৃষ্ণার্ত নন, জাঁকজমক“। এছাড়াও রায়ান একটি জান্নাতের দরজার নাম যা সিয়াম পালনকারীদের জন্য উৎস্বর্গকৃত। নামের আরবি: ريَّان ও ইংরেজি: Rayyan

উৎস: শিশুদের নাম বই, ব্লগ, ওয়েবসাইট সমূহ থেকে নামগুলোর জনপ্রিয়তা যাচাই করা হয়েছে। 

দায়মুক্তি: নামগুলি আপনার শিশুর জন্য চুড়ান্ত করার পূর্বে স্থানীয় ইমাম কিংবা জ্ঞানী ব্যক্তিদের সাথে পরামর্শ করে নিবেন। 

Please follow our Facebook, Twitter, Instagram, Linkedin, Pinterest, Tumblr, And Youtube channels for more updates.

Leave a Comment

error: Content is protected !!