২৬ জন নবীদের পবিত্র নামের তালিকা

আপনি যদি নবীদের নামের সাথে মিল রেখে আপনার নবজাতক ছেলে শিশুর নাম নির্বাচন করতে আগ্রহী হোন, তাহলে পবিত্র কুরআনে বর্ণিত ২৬ জন নবীদের নামের তালিকা থেকে একটি নাম আপনার ছেলে বাবুর জন্য বিবেচনা করতে পারে।

কুরআনে বর্ণিত ২৬ জন নবী ও রাসূলদের নাম!

পথভ্রষ্ট মানব জাতিকে হিদায়েতের জন্য পরম করুনাময় আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন যুগ যুগে নবী ও রাসূল পাঠিয়েছেন। আল্লাহ পাক পবিত্র কুরআনুল কারীমে ইরশাদ করেনঃ

“এবং আমি নিশ্চয়ই প্রত্যেক জাতির কাছে রাসূল প্রেরণ করেছি।-সূরা নাহল ৩৬।”

নবী ও রাসূলদের সঠিক সংখ্যা আল্লাহ পাকই জ্ঞাত আছেন। হাদীসে উল্লেখ আছে যে, আল্লাহ যে নবী ও রাসূল পাঠিয়েছেন তার সংখ্যা একলক্ষ চল্লিশ হাজার। তারমধ্যে তিন শত তেরজন রাসূল। পবিত্র কুরআনুল কারীমে আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন মাত্র ২৬জন নবী রাসূলের কথা উল্লেখ করেছেন। আল্লাহ বলেনঃ

“কিছু রাসূলদের (সম্বন্ধে) তোমার কাছে বর্ণনা করলাম এবং কিছু রাসূলদের কথা বর্ণনা করলাম না।-সূরাঃ নিসা ১৬৩।”

রাসূলের পরিচয়ঃ যাদের উপর আল্লাহ শরীয়াত নাযিল করেছেন এবং তাঁর বিধান বাস্তবায়নের হুকুম দিয়েছেন।

নবীদের পরিচয়ঃ যাদের উপর নতুন শরীয়াত অবতীর্ণ হয়নি, বরং পূর্ববর্তী শরীয়া অনুযায়ী মানুষকে হিদায়েত করার জন্য অদিষ্ট হয়েছেন।

তাই বুঝা গেল যে, প্রত্যেক রাসূলই নবী ছিলেন, কিন্তু নবী রাসূল ছিলেন না, এক যামানায় অনেক বর্তমান ছিলেন। যেমন মূসা (আঃ) সময়ে হযরত খিজির (আঃ) কেও অনেকে নবী মনে করেন। ইয়াকুব (আঃ) ইউসুফ (আঃ) পিতা পুত্র নবী ছিলেন। পিতা ইব্রাহিম (আঃ) নবী (অনেকে রাসূলও বলেন) তাঁর পুত্র ও ভাগিনা যথাক্রমে হযরত ইসমাইল (আঃ) ও হযরত লূত (আঃ) নবী ছিলেন একই সময়ে কিন্তু ভিন্ন ভিন  স্থানে।

রাসূলুল্লাহ (সাঃ) মুসলমানদেরকে তাদের সন্তানদের নাম নবীগণের নামে নামকরণের আদেশ দিয়েছেন এবং নিজেও তাঁর একপুত্র সন্তানের নাম হযরত ইব্রাহীম (আঃ) এর নামে নামকরণ করেছিলেন। যে নবীদের কথা কুরআন শরীফে উল্লেখ আছে তা তাঁর অর্থ তাৎপর্যপূর্ণ , তাই এসব নামে নামকরণ অত্যন্ত বরকতময়। মুসলিম ভাই ও বোনেরা যাতে তাদের আদরের সন্তানদের নাম নবীগণের নামে নামকরণ পারে। সেই সুবিধার্থে কুরআন ও হাদীসের বর্ণিত নবী রাসূলদের পবিত্র নামসমূহ বর্ণনা করা হলো।

২৬ জন নবীদের নামের তালিকা ও বৈশিষ্ট্য

 ক্রমিক নং

 নবী ও রাসূলদের নাম

 বৈশিষ্ট্য/লকব

০১

 আদম (আঃ)

আদি পুরুষ। লকবঃ আবুল বাশার (মানবজাতির পিতা) সাফী উল্লাহ। (আল্লাহর পছন্দনীয়)

০২

 নূহ (আঃ)

প্রথম রাসূল ও নবী। লকবঃ নবীউল্লাহ/আল্লাহর নবী

০৩

 ইদরীস (আঃ)

জ্যোতি বিজ্ঞানের উদ্ভাবক ও শিক্ষাবিদ

০৪

 লূত (আঃ)

ইবরাহীম (আঃ)-এর ভ্রাতুষ্পুত্র

০৫

 হুদ (আঃ)  

পবিত্র কোরআনে তাঁর নাম ৭ বার এসেছে।

০৬

 সালেহ (আঃ)

নাকাতুল্লাহ/ আল্লাহর উট তাঁর মুজেযা

০৭

 ইবরাহীম (আঃ)

লবকঃ খালীলুল্লাহ/ আল্লাহর বন্ধু

০৮

 ইসমাঈল (আঃ)

লকবঃ জবীহুল্লাহ/ উৎসর্গীকৃত

০৯

 ইসহাক (আঃ)

ইবরাহীম (আঃ) এর পুত্র; তাঁর নাম পবিত্র কুরআনে ১৭ বার এসেছে।

১০

 ইয়াকুব (আঃ)

পবিত্র কুরআনে ১২ জায়গায় তাঁর নাম উল্লেখ করা হয়েছে

১১

 ইউসুফ (আঃ)

তার জীবনের ঘটনাকে “আহসানুল কাসাস” নামে অভিহিত করা হয়েছে।

১২

 আইয়ূব (আঃ)

দীর্ঘ আঠার বছর অসুস্থাবস্থায় থেকে আল্লাহর পরীক্ষায় পাশ করেন।

১৩

 যূল কুফল (আঃ)

পবিত্র কুরআনের দুই সূরায় তাঁর নাম এসেছে।

১৪

 শোয়াইব (আঃ)

সুপ্রসিদ্ধ বক্তা ও মূসা (আঃ)-এর শ্বশুর

১৫

 খিজির (আঃ)

যার নবুয়ত সম্পর্কে মতভেদ আছে। অনেকেই তাকে নবী ও বলেন।

১৬

 মূসা (আঃ)

লকবঃ কালীম উল্লাহ/ আল্লাহর সাথে কথোপকথন  কারী

১৭

 হারুন (আঃ)

মূসা (আঃ) এর ভাই ও সুবক্তা

১৮

 দাউদ (আঃ)

সুকণ্ঠের অধিকারী ছিলেন

১৯

 সুলায়মান (আঃ)

জ্বীন ও মানুষের বাদশা ছিলেন।

২০

 ইলইয়াস (আঃ)

তিনি এখনো পৃথিবীর বুকে জীবিত আছেন।

২১

 ইউনূস (আঃ)

লকবঃ যুননুন/ মাছওয়ালা

২২

 আল ইয়াসা (আঃ)

বনী ইসরাঈলের একজন নবী

২৩

 যাকারিয়া (আঃ)

হযরত ইয়াহইয়া (আঃ) এর পিতা

২৪

 ঈসা (আঃ)

আলোচিত হয়েছে।

২৫

 হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)

লকবঃ রুহুল্লাহ/ আল্লাহর প্রদত্ত আত্মা। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) সর্বশেষ রাসূল ও নবী, আল্লাহর রসূল। সর্বশেষ নবী।

২৬

 উযায়ের (আঃ)

ইহুদীরা তাকে আল্লাহর পুত্র বলত।

২৭

 যুল-কারনায়েন (আঃ)

কথিত আছে তাঁর মাথায় দুই দিকে দুটি শিং আছে। বলা হয়ে থাকে তিনি আলেকজান্ডার দিগ্রেট, কিন্তু তা ঐতিহাসিক অনুমান, সঠিক নয়।

২৮

 শীস (আঃ)

লকবঃ হিবাতুল্লাহ/ আল্লাহরদান

২৯

 হউশা (আঃ)

লকবঃ মূসা (আঃ) এর বিশিষ্ট সহচর।

৩০

 শাময়ূন (আঃ)

দাউদ (আঃ) এর পূর্বে তিনি আবির্ভূত হন।

৩১

 জারজীস (জজীস)

মুজাহিদ ও বনী ইসরাঈলের নবী

৩২

 খানূক (আঃ)  

বনী ইসরাঈলের নবী ছিলেন।

৩৩

 দানিয়াল (আঃ)

মূসা (আঃ) মৃত্যুর পর তিনি আসেন।

৩৪

 হিযক্বীল (আঃ)

পবিত্র কুরআনের একটি সূরা তাঁর নামে নামকরণ করেছেন আল্লাহ।

ইসলামের নবীগণের নাম ও পরিচয়! (Prophets of Islam)

01.  আইয়ুব -Ayyub – أيوب আইয়ুব ছিলেন আল্লাহর একজন নবী যিনি কঠোরতা ও কষ্টের মধ্যে ধৈর্য্যের জন্য পরিচিত।
02.  ঈশা – Eisa – عيسى একজন নবীর নাম। তিনি যিশু নামের পরিচিত। 
03.  ইব্রাহিম – Ibrahim – إبراهيم মুসলিমদের জাতির পিতা, দয়ালু পিতা। একজন নবীর নাম। 
04.  ইলিয়াস – Ilias – لتي মৃদু, সদয়, মনোরম, বন্ধুত্বপূর্ণ। 
05.  ইসমাইল – Ismail – إسماعيل সংরক্ষণ, অসম্পূর্ণতা, 9 শতকের একজন পণ্ডিত, ইবনে হাম্মাদ এই নামটি রেখেছিলেন।
06.  লুত – Lut – لوط একজন নবী, তিনি হজরত ইব্রাহিমের সাথে সম্পর্কিত ছিলেন এবং তাকে সদোমে পাঠানো হয়েছিল।
07.  মোহাম্মদ – Mohammed – محمد  প্রশংসিত, প্রশংসনীয়, চূড়ান্ত নবীর নাম (সাঃ), মুহাম্মদ হল আরবী প্রদত্ত নামের প্রাথমিক প্রতিবর্ণীকরণ।
08.  মুসা – Musa – موسى একজন নবীর নাম। বাইবেলের মূসা!
09.  মোস্তফা – Mustafa – مصطفى নির্বাচিত, পছন্দের, আমাদের নবী (সাঃ) এর একটি নাম।
10.  নূহ – Nuh – نوح একজন নবীর নাম (নূহ)

ছেলেদের আরও সুন্দর ইসলামিক নামের তালিকা… 

০১. ৩১৩ বদরী সাহাবীদের নামের তালিকা

০২. আল্লাহর নামের সাথে “আবদ” যুক্ত নাম

০৩. অ দিয়ে ছেলেদের সুন্দর ইসলামিক নাম অর্থসহ

প্রিয় পাঠক পাঠিকা, আশা করি কুরআনে উল্লেখিত নবীদের নাম ও নামের অর্থ এবং বৈশিষ্ট্যগুলি জেনে আপনাদের ভালো লেগেছে এবং এই নবী রাসূলদের নামের তালিকা থেকে যেকোনো একটি নবীর বা রাসূলের নাম আপনার ছেলে শিশুর জন্য চয়ন করবেন। 

Please join our Facebook, Twitter, Instagram , Linkedin , Tumblr And Youtube channel.

1 thought on “২৬ জন নবীদের পবিত্র নামের তালিকা”

Leave a Comment

error: Content is protected !!